Wednesday, 30 November 2022

প্রাক্তন স্ত্রীর বিরুদ্ধে বিস্ফোরক বক্তব্য দিলেন জনি ডেপ

Editor: CanBangla
Thursday, 21 April 2022 435

বিনোদন ডেস্ক : প্রাক্তন স্ত্রী অ্যাম্বার হার্ডের বিরুদ্ধে পাল্টা মানহানির মামলা দায়ের করেছেন জনি ডেপ। আদালতে দাঁড়িয়ে সেই মামলার সাক্ষ্য দিতে গিয়ে বুধবার এই হলিউড তারকা বলেছেন, অ্যাম্বার হার্ড নিজেই তার সঙ্গে সহিংস আচরণ করেছেন এবং তার করা মিথ্যা অভিযোগগুলোর কারণে জীবনে সবকিছু হারিয়েছেন ‘পাইরেটস অব দ্য ক্যারিবিয়ান’ তারকা! সূত্র: রয়টার্স।

ভার্জিনিয়ার আদালতে সাক্ষ্য দিতে দাঁড়িয়ে ডেপ বলেন, তাদের দুজনের মধ্যে একাধিকবার তর্কাতর্কি হয়েছে। সেসময় হার্ড জনি ডেপকে বাজে আচরণ এবং কটূক্তি করেছেন। আমার মনে হচ্ছিলো সে স্রেফ আমাকে ঘৃণা করে। আমি যদি তর্ক চালিয়ে যেতাম তাহলে নিঃসন্দেহে তা সহিংসতায় পরিণত হতো। আর বেশ কয়েকবার তা হয়েছেও!

৫৮ বছর বয়সী অভিনেতা জনি ডেপ এবার ৫০ মিলিয়ন ডলারের মামলায় নেমেছেন ৩৫ বছর বয়সী অ্যাম্বার হার্ডের বিরুদ্ধে। তবে তার অনেক আগেই অভিনেতার বিরুদ্ধে নিপীড়ণের অভিযোগ তুলে মামলা করেছিলেন হার্ড।

আদালতে ডেপ আরো জানান, ঝগড়ার সময় হার্ডই প্রথম তাকে থাপ্পড় বা ধাক্কা দিতে এগিয়ে আসতেন। একদিন তর্কাতর্কির সময় হার্ড ডেপের হাত লক্ষ্য করে ভদকার বোতলও ছুঁড়ে মারেন এবং এতে তার ডান হাতের মধ্যাঙ্গুলি কেটে যায় বলে অভিযোগ করেন ডেপ।

এমনকি একসময় তিনি ক্ষতস্থানের রক্ত দিয়ে দেয়ালে লিখতে শুরু করেন! ডেপ বলেন, হার্ড তাকে যেসব মিথ্যা কথা বলেছিলেন, সেগুলোই তিনি দেয়ালে লিখতেন। সে শুধু সহিংসতার সুযোগ খুঁজতো। যেকোনো বিষয় নিয়েই এই পরিস্থিতি তৈরি হতো।

এদিকে ব্রিটেনে একই ধরনের মামলায় হার্ড তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। ডেপের হাতের দিকে বোতল ছোঁড়ার কথা অস্বীকার করেন তিনি।

হার্ড বলেন, ডেপের মারের হাত থেকে বাঁচতে তিনি কিছু জিনিস ছুঁড়েছিলেন। ডেপ তার বোনকে সিড়ি থেকে ফেলে দিবেন, এই ভয়ে একবার তিনি তাকে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে দেন বলে জানান হার্ড।

হলিউড অভিনেতা বলেন, হার্ডের আনা অভিযোগগুলো তাকে প্রায় নিঃস্ব করে দিয়েছে। হার্ডের আনা মামলার কারণে তিনি একাধিক ফ্র্যাঞ্চাইজি চলচ্চিত্র থেকে বাদ পড়েছেন এবং তাকে উপেক্ষা করেছে হলিউড।

ডেপ বলেন, ‘সে যখন অভিযোগগুলো তোলে, তা গণমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। সে দাবি করে যে আমি একজন মাতাল, কোকেইনে আসক্ত, যে কিনা স্ত্রীকে পেটায়... আর তখনই আমি হেরে যাই। আমার সবকিছু তখনই শেষ হয়ে গেছে। মামলার রায় যা ই আসুক না কেন, আমাকে সারাজীবনই এটা বয়ে বেড়াতে হবে।’